কক্সবাজারে কোন হোটেলের রুম ভাড়া কত (জনপ্রিয় ৬টি হোটেল)

কক্সবাজার কে বলা হয় বাংলাদেশের পর্যটন রাজধানী এলাকা। কারণ সেখানে প্রায় সারা বছর মানুষ ঘুরতে যায় এবং সারা বছর ওখানে গেলে মানুষ খুব ইনজয় করতে পারে এবং যাবতীয় যা প্রয়োজন একজন মানুষের সেসকল প্রয়োজন গুলো ওইখানে পাওয়া যায়। আমরা যারা কক্সবাজারে কখনো যায়নি যাওয়ার জন্য প্ল্যান আছে বা যাওয়ার জন্য খুব ইচ্ছে কখনো যাওয়া হয়নি বা অনেকে গেছেন তাদের উদ্দেশ্যেই এই কথাগুলো বলা হচ্ছে যে বর্তমানে কক্সবাজারের যে হোটেল গুলো আছে সে হোটেলগুলোর ভাড়া সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু এই পোস্টের মাধ্যমে তুলে ধরবো।

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত বিশ্বের মধ্যে বৃহত্তম একটি সৈকত । সেখানে সারা বছরই মানুষ ঘুরতে যায় অনেকে বাস ভাড়া করে যায়, অনেকের প্রাইভেট কার আছে, মোটরসাইকেল আছে যে যেভাবে যেতে চায় সেভাবেই কক্সবাজারে যাওয়া যায় এবং কি বিমানের মাধ্যমেও কক্সবাজার ভ্রমণ করা যায় । ফ্যামিলির সাথে যায় অনেকে আছে বন্ধু মিলে যায় যার যেভাবে ভালো লাগে সে সেই ভাবেই যায়। তো চলুন আর দেরি না করে দেখে আসি কোন হোটেলের ভাড়া কত টাকা নির্ধারণ করা আছে। 

কক্সবাজারের কোন হোটেলে ভাড়া কত টাকা 

কক্সবাজারে অনেকগুলি হোটেল আছে যেখানে আপনার সব ধরনের লোক ওইখানে গিয়ে রাত কাটাতে পারবেন উচ্চবিত্ত , মধ্যবিত্ত , নিম্নবিত্ত লোক যে যেই হোন না কেন সব লোকের জন্য বিভিন্ন ধরনের হোটেল আছে থাকার জন্য । তো আমরা দেখে নেই কোন হোটেলের মূল্য কত টাকা থেকে কত টাকা হতে পারে তার একটি নমুনা নিচে তুলে ধরা হলো

সায়মন বিচ রিসোর্ট

এই হোটেলটি হচ্ছে ভিআইপিদের জন্য। এই হোটেলের প্রতি রাতের জন্য রুম ভাড়া হচ্ছে ১০৫০০ থেকে ৮০০০০  টাকা পর্যন্ত । এই হোটেলটি অবস্থিত কলাতলী মেরিন ড্রাইভ রোড। এই হোটেলটিতে আপনি যে সুবিধাগুলো পাচ্ছেন  বার, রেন্টাল কা, ফ্রি ওয়াইফাই, সংবাদপত্র, কারেন্সি এক্সচেঞ্জ, বিজনেস সেন্টার, কনফারেন্স এবং ব্যানকুইট হল, লন্ড্রি ২৪ ঘন্টা রুম সার্ভিস, লাগেজ রুম, এয়ারপোর্ট ট্রান্সপোর্ট এবং বাস এবং বিমানের টিকিট কাটার বিশেষ সুবিধা রয়েছে এই হোটেলটিতে। 

হোটেল দ্য কক্স টুডে

এই হোটেলটি হচ্ছে ভিআইপিদের জন্য এই হোটেলের প্রতি রাতের জন্য রুম ভাড়া হচ্ছে ৭৫০০ থেকে ৮০০০০ টাকা পর্যন্ত। এই হোটেলটি ও কলাতলী রোডে অবস্থিত। এই হোটেলটিতে ও আপনি আপনার যাবতীয় যে সুবিধাগুলো আছে এবং দরকার আপনি সে সকল ধরনের সুবিধা পেয়ে যাবেন। এবং এই হোটেলটি তেও বাস এর টিকিট এবং বিমানের টিকিট কাটার বিশেষ সুবিধা রয়েছে। 

লং বিচ হোটেল

এই হোটেলটি অবস্থিত কলাতলীতে হোটেলটিতে এক রাত থাকতে হলে আপনাকে গুনতে হবে ৬৫০০ টাকা থেকে ৪০০০০ হাজার টাকা পর্যন্ত। এই হোটেলটি তে আপনি আপনার যে প্রয়োজনীয় জিনিস গুলো দরকার তা আপনি এই হোটেল কর্তৃপক্ষকে জানালে সাথে সাথে পেয়ে যাবেন।

সীগাল হোটেল

এই হোটেলটি অবস্থিত হচ্ছে সুগন্ধা পয়েন্টে এই হোটেলটির জন্য আপনাকে প্রতিরাতে গুনতে হবে ৮০০০ থেকে ১৭০০০ হাজার টাকা পর্যন্ত। হোটেলে যদিও তেমন সুবিধা নেই ভিআইপি হোটেল এর মত তবে অনেক কিছু পাবেন এই হোটেলের ফ্যাসালিটি সিস্টেমে। 

হোটেল সি প্যালেস

এই হোটেলটি অবস্থিত কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কার্যালয় হতে প্রায় ৩ থেকে ৩.৫ কিলোমিটার দূরে। এই হোটেলটিতে প্রতি রাতে আপনাকে গুনতে হবে ৩৫০০ টাকা থেকে ১৭০০০ হাজার টাকা পর্যন্ত। যদিও আপনি এই হোটেলে ভিআইপি হোটেলের মত অতটা সুবিধা পাবেন না তবুও আপনার এই হোটেলের পরিবেশটা অনেক ভালো লাগবে আশা করি।

হোটেল সী ওয়ার্ল্ড

এই হোটেলটি অবস্থিত লাবনী পয়েন্ট এই হোটেলের জন্য আপনাকে প্রতি রাতের ভাড়া গুণতে হবে ২৫০০ টাকা থেকে ১৮০০০ হাজার টাকা পর্যন্ত। মূল্য যদি একটু কম হয় সে ক্ষেত্রে ভালো তবে ভিআইপি হোটেলের মত অতটা সুবিধা পাওয়া যাবে না। তবে এই হোটেলে মোটামুটি সব ধরনের ফ্যাসালিটি আপনি পাবেন যদিও সবগুলো নেই তবে যতটুকু দরকার ততটুকু পাবেন। 

আপনাদের মাঝে যে হোটেল গুলো উল্লেখ করা হয়েছে এর মধ্যে সব হোটেল গুলো প্রায় ফাইভ স্টার হোটেল এবং এর মধ্যে থ্রি স্টার হোটেল ও আছে। তো আর কথা না বাড়িয়ে আপনাদের মাঝখান থেকে বিদায় নিচ্ছি পোস্টটি ভাল হলে অবশ্যই শেয়ার করবেন।  

Leave a Comment